কোটা আন্দোলন # ঢাকা-রাজশাহী রেললাইন অবরোধ রাবি শিক্ষার্থীদের

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার ও ২০১৮ সালের পরিপত্র পুনর্বহালের দাবিতে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ঢাকা-রাজশাহী রেলপথ অবরোধ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় রেলপথ অবরোধ করেন তারা।

অবরোধের কারণে উত্তরবঙ্গের সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

এ সময় ‘মুক্তিযুদ্ধের মূলকথা, সুযোগের সমতা’,‘সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে’, ‘আঠারোর হাতিয়ার, গর্জে উঠুক আরেকবার’,‘জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্রসমাজ জেগেছে’,‘কোটা না মেধা, মেধা মেধা’,‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলায়, বৈষম্যের ঠাঁই নাই’ এমনসব স্লোগান দেন।

রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের চিফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট আহসান উল্লাহ বলেন, ‘রেললাইন অবরোধের কারণে উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।’

কোটাবিরোধী আন্দোলনে সমন্বয়ক আমানুল্লাহ আমান বলেন, হাইকোর্টের রায় অনুযায়ী মোট কোটা আছে ৫৬ শতাংশ আর মেধাবীদের জন্য মাত্র ৪৪ শতাংশ। এটা মেধাবীদের জন্য একটা বৈষম্য। আমরা এই বৈষম্য চাই না। আমাদের দাবি এখনো সরকার মেনে নেয়নি। তাই আমাদের চলমান কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ রেললাইন অবরোধ করেছি। আজ থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থী ক্লাস-পরীক্ষা আনুষ্ঠানিকভাবে বর্জন করা হয়েছে এবং ক্যাম্পাসের কোনো বাসও চলাচল করতে পারবে না।

এর আগে গতকাল রোববার অবস্থান কর্মসূচি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে রেলপথ অবরোধের ঘোষণা দেন রাবি শিক্ষার্থীরা। কর্মসূচিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস সার্ভিস বন্ধ এবং ঢাকা-রাজশাহী রেলপথ অবরোধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল।

উল্লেখ্য, এর আগে ৫ ও ৬ জুলাই কোটা সংস্কারের দাবিতে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করা হয়।

-Manob zamin

পূর্বের খবর“দেশের স্বাধীনতা -সার্বভৌমত্ব ও ইসলামী মূল্যবোধ রক্ষায় অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে”– মিয়া গোলাম পরওয়ার  
পরবর্তি খবরভিডিও- সংবিধানের কোথাও চাকরিতে কোটার কথা বলা নেই: আসিফ নজরুল |