সিনহা হত্যা মামলা: প্রদীপ-লিয়াকতসহ পুলিশের ৭ সদস্য বরখাস্ত

  • সিনহা মো. রাশেদ খান- প্রদীপ কুমার দাশ- মো. লিয়াকত
    সিনহা মো. রাশেদ খান- প্রদীপ কুমার দাশ- মো. লিয়াকত

কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান মৃত্যুর ঘটনায় টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ ও টেকনাফ বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের আইসি পুলিশ পরিদর্শক মো. লিয়াকতসহ সাত পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বরখাস্ত হওয়া অন্যরা হলেন- উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দদুলাল রক্ষিত, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) লিটন মিয়া, পুলিশ কনস্টেবল সাফানুর রহমান, কামাল হোসেন ও আবদুল্লাহ আল মামুন।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী পুলিশ মহাপরিদর্শক সোহেল রানা জানিয়েছেন, গতকাল (শুক্রবার) এই সাত পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এই সাত পুলিশ সদস্যের নাম উল্লেখ করে গত বুধবার মামলা করেন সিনহা রাশেদের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এই সাত আসামি বৃহস্পতিবার কক্সবাজার আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এর পর আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পরে শারমিন ফেরদৌসের করা হত্যা মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাবের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তিনজনকে (প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলী, সাফানুর করিম) সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব। বাকি চারজনকে (নন্দ দুলাল রক্ষিত, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন এবং লিটন মিয়া) জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি পেয়েছে র‌্যাব।

এই মামলার অপর দুই আসামি টুটুল ও মোস্তফাকে পলাতক দেখিয়ে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত।

কক্সবাজারের টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর পুলিশ তল্লাশিচৌকিতে গত ৩১ জুলাই রাতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান (৩৬)। এ ঘটনায় ওই দিনই মধ্যরাত পেরিয়ে মামলা দায়ের করে পুলিশ। মামলার এজাহারে ৩১ জুলাই রাত ১১টা ১৫ মিনিটে ঘটনার সময় উল্লেখ করা হয়। আর মামলা দায়েরের সময় উল্লেখ করা হয় ১ আগস্ট প্রথম প্রহর, রাত ১টা ৩৫ মিনিট। টেকনাফ থানায় দায়ের করা মামলাটির বাদী উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দ দুলাল রক্ষিত। নিহত সিনহা রাশেদের সহযোগী সাহেদুল ইসলাম সিফাত এই মামলার আসামি।

একই ঘটনায় চার দিন পর ৫ আগস্ট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এ মামলার অভিযোগে বলা হয়, সিনহা মো. রাশেদ খান ২০১৮ সালে ব্যক্তিগত কারণে সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেন। এরপর থেকে তিনি শিল্প ও সংস্কৃতি পরিমণ্ডলে এবং পর্যটন নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। ‘জাস্ট গো’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল খোলার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ওই চ্যানেলের জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘরে তথ্যচিত্র ধারণ করছিলেন তিনি।

মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, ঘটনার দিন টেকনাফ বাহারছড়ার পাহাড়ি এলাকায় ওই দিনের শুটিং শেষ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে ফিরছিলেন। শামলাপুর চেক পোস্টে পৌঁছালে আসামি পুলিশ সদস্যরা গাড়ির গতিরোধ ধরে। সিফাত হাত উঁচিয়ে বের হয়ে নিজের ও সিনহার পরিচয় দিলে পুলিশ সদস্যরা সিনহাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এ সময় মেজর সিনহা গাড়ি থেকে হাত উঁচিয়ে বের হলেও তাদের গালিগালাজ চলতে থাকে। একপর্যায়ে পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত গুলি করলে সিনহা মো. রাশেদ মারা যান।

আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহ মামলাটি গ্রহণ করেন। তিনি এজাহারটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করে সাত দিনের মধ্যে আদালতকে অবহিত করতে টেকনাফ থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। পাশাপাশি মামলাটি তদন্ত করে আদালতকে জানানোর জন্য র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/৮