রাজাকারদের রাজনীতি-ভোটাধিকার নিষিদ্ধ করার দাবি

স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার ও মানবতাবিরোধী অপরাধী ও তাদের বংশধরদের সাংবিধানিকভাবে ভোটাধিকার হরণ ও স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে রাজাকারদের রাজনীতি নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির বিজয়ের ৪৯তম বার্ষিকীতে সকাল ১১টায় সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর এ দাবি জানান বোয়াফ।

সংগঠনের সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, আমাদের গৌরবোজ্জ্বল মুক্তিযুদ্ধের মহান বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে দাঁড়িয়েও স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার ও মানবতাবিরোধী অপরাধীর বংশধর পরিকল্পিতভাবে স্বাধীন-সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে, ইসলাম ধর্মের অপব্যাখ্যা সৃষ্টি করে দেশের সাধারণ মানুষদের বিভ্রান্ত ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রের নীল-নকশা প্রণয়ন ভাস্কর্য ইস্যু সৃষ্টি করেছে যা ভবিষ্যত গণতন্ত্র, অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং উন্নয়নের বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপকৌশল আজ প্রতীয়মান!

তিঁনি আরও বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতি ও ভোটাধিকার সাংবিধানিকভাবেই নিষিদ্ধ এবং এই অশুভ অপশক্তির বিষবৃক্ষের মূলোৎপাটন করার সময়ের দাবি হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে নির্ভুল রাজাকারের তালিকা প্রণয়ন করে তাদের ব্যক্তি ও বংশ পরম্পনার পরিচয় দেশ ও জাতির সামনে তুলে ধরাও সরকারের নৈতিক দায়িত্ব।

কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, ত্রিশ লাখ শহীদ আর দুই লাখেরও বেশি সম্ভ্রম বিনাশে নারী মুক্তিযোদ্ধাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম চার মূলনীতি বাঙালি জাতীয়তাবাদ, ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে রূপ দিতে হলে, দেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি ও মানবিক মূল্যবোধ নিশ্চিত করতে হলে পরিকল্পনা গ্রহণ করেই জঙ্গি-মৌলবাদের অশুভ শক্তি রুখে দিতে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ এবং ৭২-এর সংবিধান পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে।

বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়ের নেতৃত্বে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর সময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি রাশিদা হক, মিজানুর রহমান, খন্দকার তারেক, যুগ্ম-সম্পাদক ইমরান খান, হাবিব উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নাঈমুর রহমান ইমন, সদস্য সাব্বিরসহ আরও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।