বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশি নিহত

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) ভোরে হরিপুর উপজেলার কাঁঠালডাঙ্গী বিওপি সীমান্তে এই ঘটনা ঘটে।

একই সময়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার রত্নাই বিওপি এলাকায় একজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নিহতরা হলেন- হরিপুর উপজেলার গেরুয়াডাঙ্গী গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মকলেছ (২৮)। তার বিষয়টি নিশ্চিত করেন হরিপুর থানার ওসি এ বি এম ফিরোজ ওয়াহিদ। অন্যজন হলেন একই এলাকার বাসেদ আলীর ছেলে জহিরুল ইসলাম (২৫)। তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিজিবির হরিপুর কাঠালডাঙ্গী বিওপির কোম্পানি কমান্ডার এন্তাজুল হক। রাত সাড়ে ৯ টার দিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন তারা।

ওসি ফিরোজ ওয়াহিদ জানান, সোমবার ভোরে এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ লাশ নাগর নদীর উপশাখা শিরানী নদীতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া যায়। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিজিবির কাঁঠালডাঙ্গী বিওপির কোম্পানি কমান্ডার এন্তাজুল হক বলেন, ভারত সীমান্তের ভেতরে এক বাংলাদেশিকে গুলি করে বিএসএফ। পরে তাকে সেখানকার একটি হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়। তার লাশ এখনও বিএসএফের কাছে আছে। তবে কী কারণে গুলি চালিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত নয় বিজিবি ও পুলিশ।

এদিকে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার আমজানখোর ইউনিয়নের বারোসাপাড়া গ্রামের দুলু মিয়ার ছেলে ইদ্রিস (৩০) গুলিবিদ্ধ হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে সোমবার রাত ১০টায় বিজিবির রত্নাই ক্যাম্পের কমান্ডার হান্নান বলেন, ওই ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হওয়ার বিষয়ে তার পরিবার ও বিএসএফ ক্যাম্পে খোঁজ নিয়ে এর সত্যতা পাইনি।

বিজিবির ঠাকুরগাঁও সেক্টর কমান্ডার কর্নেল এম এইচ হাফিজুর রহমান জানান, বিএসএফের গুলিতে সীমান্তে দুই বাংলাদেশির নিহত হয়েছেন। এ বিষয়ে বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠক হয়েছে। প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ভারতে থাকা লাশ বিএসএফ দ্রুত ফেরত দেবে।

উৎসঃ   banglatribune