বিএনপি ও জামায়াত কী আবারো জোটবদ্ধ হওয়ার দিকে এগুচ্ছে

বাংলাদেশের রাজনীতির মাঠে কয়েক বছরের বিচ্ছেদের পর নিজেদের পুরনো মিত্র জামায়াতে ইসলামীকে আবারো কাছে আনার একটি উদ্যোগ নিয়েছে বিএনপি। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে দল দুটির মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু হয়েছে।

তবে এবার তাদের সম্পর্ক কেমন হবে কিংবা এটি জোট গঠন পর্যন্ত যাবে কি-না তা নিয়ে এখনই কিছু বলার সময় আসেনি বলছেন দল দুটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল হালিম বিবিসিকে বলেছেন এ নিয়ে বিএনপির সঙ্গে তাদের আলোচনা শুরু হয়েছে।

“একটি প্রক্রিয়া বা আলোচনা শুরু হয়েছে বলা যায়। তবে কী হবে এখনি বলতে পারছি না। এ বিষয়ে আর কিছু বলা ঠিক হবে না,” বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন তিনি।

তবে বিএনপি নেতারা এ নিয়ে এখনি মুখ খুলতে রাজী নন। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন আহমেদ বলছেন তারা চান বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার যেন একতরফা নির্বাচন না করতে পারে, সেজন্য একটি জাতীয় ঐক্য গড়ে উঠুক।

“গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য যারাই সাতই জানুয়ারির একদলীয় নির্বাচন বর্জন করছে, তাদের সবাইকেই আমরা আহবান জানাচ্ছি, যাতে করে জনগণের দাবি অর্জনে একটি জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা যায়,” বিবিসি বাংলাকে বলেছেন তিনি।

তবে বিএনপির এই জাতীয় ঐক্যের চিন্তায় সামিল করতে জামায়াতের সাথে কোন আলোচনা হচ্ছে কি-না এমন প্রশ্নের সরাসরি কোন জবাব তিনি দেননি।

দলটির স্থায়ী কমিটির আরেকজন সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন জামায়াত তো বিএনপির মতোই আন্দোলন করছে। “এর বাইরে আর কিছু হলে সেটা ভবিষ্যতে জানতে পারবেন,” বলছিলেন তিনি।

বিএনপির নেতৃত্ব চারদলীয় জোটে জামায়াত গুরুত্বপূর্ণ দল হিসেবে বিএনপি নেতৃত্বাধীন সরকারেও ছিলো। কিন্তু ২০১৮ সালের নির্বাচনের পর থেকে দল দুটির মধ্যে সম্পর্ক ফিকে হতে শুরু করে। এক পর্যায়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট থেকেই সরে আসে দলটি।

এখন আবার যেসব দল দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ থেকে বিরত আছে তাদের ‘এক জায়গায়’ আনার চিন্তা করছে বিএনপি, যার মূল উদ্দেশ্য সাতই জানুয়ারির নির্বাচনের বিরুদ্ধে শক্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা।

বিশ্লেষক মহিউদ্দিন আহমেদ বলছেন জামায়াত বিএনপির পুরনো ও বিশ্বস্ত মিত্র।

“যুদ্ধাপরাধ ইস্যুতে সমালোচনার মুখে জামায়াতের সঙ্গ ছাড়লেও এখন বিএনপি হয়তো দেখবে তার সাথে কারা থাকলে তার আন্দোলনে বেশি লাভ হবে। সেক্ষেত্রে জামায়াতকে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিএনপি বেশী বিবেচনা করতে পারে,” বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন তিনি।

  • BBC