পরমাণু যুদ্ধে জড়িয়ে যেতে পারে রাশিয়া

মার্কিন সরকার ধারণা করছে, ইউক্রেন সংকটকে কেন্দ্র করে রাশিয়া পরমাণু যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে পারে। মার্কিন প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থার মূল্যায়ন প্রতিবেদন এ আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড স্পেশাল অপারেশন্স বিষয়ক মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের আর্মড সার্ভিসেস সাব-কমিটি কাছে এ প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়। এতে বলা হয়েছে, চলমান যুদ্ধ রাশিয়াকে প্রচলিত সামরিক শক্তিতে ধীরে ধীরে দুর্বল করে দেয়ার প্রেক্ষাপটে পশ্চিমা দেশগুলোকে নিজের সামরিক সক্ষমতা দেখানোর জন্য মস্কো সম্ভবত তার পরমাণু শক্তির ওপর নির্ভর করতে পারে। মার্কিন ডিফেন্স ইন্টেলিজেন্স এজেন্সির পরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল স্কট বেরিয়ার ওই প্রতিবেদনে এ মন্তব্য করেছেন।

মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সামরিক জোটের আগ্রাসী বিবৃতির জবাবে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নিজ দেশের পরমাণু বাহিনীকে সর্বোচ্চ সর্তক থাকার নির্দেশ দেন। জার্মানি এবং ইউরোপীয় কয়েকটি দেশ ইউক্রেনকে সামরিক সহায়তা জোরদারের ঘোষণা দেয়ার পর তিনি এই নির্দেশ দেন। এছাড়া, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেছিলেন, রাশিয়া যদি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান বন্ধ না করে তাহলে এই সংঘাতে ন্যাটো জড়িয়ে যেতে পারে।

জেনারেল বেরিয়ার তার রিপোর্টে আরো বলেছেন, পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের ব্যাপারে রাশিয়ার পক্ষ থেকে যেসব মন্তব্য করা হয়েছে তাকে আপাতত ভয় দেখানোর কৌশল বলে মনে করা হচ্ছে। তিনি বলেন, ইউক্রেন এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর ওপর প্রভাব বিস্তারের ক্ষেত্রে রাশিয়া দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। সে কারণে তারা যুদ্ধকে নিজেদের সফলতার দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে। তারা সম্ভবত এমন হিসাব নিকাশ করেছে যে, ইউক্রেনে তাদের বিজয় সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোকে মস্কোর কাছাকাছি আনবে কিন্তু রাশিয়া যদি ইউক্রেনে পরাজিত হয় অথবা তাদের এই সামরিক অভিযান অনেক বেশি সময় নেই তাতে বিপরীত প্রভাব পড়বে।#

পার্সটুডে/এসআইবি/১৯