ধান কাটার নামে মন্ত্রী-এমপিরা কৃষকের সর্বনাশ করছে কেন?

 

প্রাণঘাতী করোনা দেশে হানা দেওয়ার শুরু থেকে সরকার দলীয় মন্ত্রী এমপিদের নানা রকম কর্মকাণ্ড ঘটিয়ে চলেছে। করোনর তথ্য গোপন, ত্রাণের চাল চুরি, তেল চুরিসহ বিভিন্ন রকম অপকর্ম করে সমালোচানার জন্ম দিয়েছে। এরপর যখন সারাদেশে মৃত্যুর মিছিল শুরু হয়ছে তবুয়ে থেমে নেই তাদের এসব কর্মযজ্ঞ।

করোনাভাইরাসের সংক্রমনের কারণে মানুষ ঘরে থাকায় ধান কাটার মৌসুমে শ্রমিক সংকটে পড়েছে চাষীরা। এই সংকট নিরসনের নামে নতুন সমালোচনার জন্ম দিয়েছে আওয়ামী মন্ত্রী এমপিরা। করোনাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে কৃষকের ধান কাটার নামে এক তামাশা শুরু করেছে তারা। কৃষকের ধান কাটার নামে সারাদেশে এখন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের ফটোসেশনের মহোৎসব চলছে। সহযোগিতার নামে কৃষকের সর্বনাশ করে দিচ্ছে।

দেখা গেছে, টাঙ্গাইলের গোপালপুরে আওয়ামী লীগের স্থানীয় এমপি ছোট মনির তার দলবল নিয়ে এক কৃষকের কাঁচা ধান কেটেছেন। এমপির ধান কাটার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর এনিয়ে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় উঠছে। এরমধ্যে আবার সুনামগঞ্জে গিয়ে আরেক কাণ্ড ঘটাই বসলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান ও কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকসহ স্থানীয় এমপিরা।

কৃষকের কাঁচা ধান কাটলেন টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির

বুধবার সকালে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ডুংরিয়া গ্রামের পাশে সাংহাইর হাওরে কৃষকদের ধান কেটে দেয়ার নামে ছবি তুলতে যান এই দুই মন্ত্রী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়াসেন গুপ্তা, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য শামীমা শাহরিয়ার ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

দেখা গেছে, ধান কাটার সময় কোনো ধরনের সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা হয়নি। উল্টো নেতাকর্মীরা ও স্থানীয় এলাকাবাসী মন্ত্রীদের ধান কাটা দেখতে গিয়ে পাকা ধানক্ষেতে নেমে অসংখ্য ধান নষ্ট করে দিয়েছেন। এমনকি তাদের ধান কাটার ছবি তুলতে গিয়ে কিছু সাংবাদিক কৃষকের পাকা ধান ক্ষেত মাড়াই করে দিয়েছেন।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ধান কাটা কার্যক্রমে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, পরিকল্পনামন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এম এ মান্নান ও সুনামগঞ্জের অন্যান্য সংসদ সদস্যেরা। ছবি: সংগৃহীত

এছাড়া, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও বিভিন্ন জায়গায় ধান কাটার নাম করে ছবি তুলে মানুষকে দেখাচ্ছে।

দুই মন্ত্রীর এই তামাশার ভিডিও ও ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর এনিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রচণ্ড ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সিনিয়র সাংবাদিক ও বিশিষ্টজন থেকে শুরু করে সকল শ্রেণি পেশার মানুষ এনিয়ে কঠোর ভাষায় সমালোচনা করছেন।

অনেকেই বলছেন, ধান কাটার নামে তারা কৃষকের এমন সর্বনাশ কেন করছেন? তাদের এই রং-তামাশা বন্ধ হবে কবে? তারা কৃষককে সহযোগিতার চেয়ে বেশি ক্ষতি করছেন। তারা ধান না কাটলেও কৃষকের কোনো ক্ষতি হবে না। আবার কেউ কেউ সেনাবাহিনীকে নামানোর কথা বলছেন।

অ্যানালাইসিস বিডি