থাকেন সৌদিয়া, হরতালে নাশকতা করলেন উখিয়া!

উখিয়ার রত্নাপালং ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের ভালুকিয়া আবছার বাপের পাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবদুস সালাম (৪২)। প্রায় ৯ মাস থেকে সৌদিআরব অবস্থান করছেন। তিনি প্রবাসে থেকেও বিএনপির অন্যান্য নেতাকর্মীদের সঙ্গে হরতালে নাশকতা মামলার আসামি হলেন।

গত ৩১ অক্টোবর উখিয়া থানায় দায়েরকৃত এজাহারে দেখা গেছে, আবদুস সালাম ৩৩ নং আসামি। তিনি ভালুকিয়া আবছার বাপের পাড়া গ্রামের হাজী দিল আহম্মদের ছেলে এবং রত্নাপালং ইউনিয়ন বিএনপির ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক।

একই মামলায় ১৭ ও ২০ নম্বর আসামি একজন, জামাল উদ্দিন মাহমুদ। তিনি হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ক্লাসপাড়া গ্রামের ঠান্ডা মিয়ার ছেলে।

গত ২৯ অক্টোবর বিএনপির ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালে নাশকতার অভিযোগে মামলাটি করেছেন পুলিশ উপপরিদর্শক (এস আই) মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ। এ মামলায় উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরীসহ মোট ৩৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার বাদি এসআই মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ বলেন, এগুলো রাজনৈতিক মামলা তো, হতাশ হওয়ার কিছুই নাই। অসুবিধা হবে না। তদন্ত কর্মকর্তা দেখেশুনে প্রতিবেদন দিবেন।

মামলার প্রসঙ্গে উখিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি সরওয়ার জাহান চৌধুরী বলেন, হরতালের দিন উখিয়ার কোথাও কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনাই ঘটেনি। এরপরও বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা খুবই দুঃখজনক।

তিনি বলেন, স্থানীয় সরকারি দলের নেতারা অতিরিক্ত প্রশাসনিক শক্তি ব্যবহার ও গায়েবী মামলা দায়ের করে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। এই ধরণের মিথ্যা মামলা কারো জন্য শোভনীয় নয়। এসব কারণে প্রশাসনের নিরপেক্ষ ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে মনে করেন উখিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি।

পূর্বের খবরহঠাৎ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সুর নরমঃ দরজা বন্ধ হয়নি, বিএনপির সঙ্গে সংলাপে রাজি আছি’
পরবর্তি খবরচটগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বাসে আগুন