করোনা প্রস্তুতি: আসল গোমর ফাঁস করলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর!

বাংলাদেশে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের আক্রমণের পর থেকে অ্যানালাইসিস বিডির একাধিক অনুসন্ধান প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, করোনা মোকাবেলায় সরকারের কোনো ধরণের প্রস্তুতি নেই। মানুষের ঘরে ঘরে হাসিনা তার পিতার জন্মদিনের উৎসব পালন করতে গিয়ে প্রাণঘাতী করোনাকে পাত্তাই দেয়নি।

সর্বশেষ রোববার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক করোনা আক্রান্ত্রের যে হিসাব দিয়েছেন তাতেই বুঝা যাচ্ছে মহামারি করোনা সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। পরশু দিন অর্থাৎ গত বৃহস্পতিবার আক্রান্ত হয়েছিল ৫ জন, গতকাল শুক্রবার আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৯ জন, আর রোববার সেই সংখ্যা দ্বিগুন হয়ে দাড়িয়েছে ১৮ জনে। সরকারি হিসাব থেকেই বুঝা যাচ্ছে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন কোথায় যাচ্ছে।

কিন্তু লক্ষণীয় বিষয় হলো-প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা যখন প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে, তখনো মন্ত্রী-এমপিদের চাপাবাজি কমছে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববারও করোনা প্রস্তুতির ভাঙা রেকর্ড বাজিয়ে বলেছেন, সময়মতো ও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। তার দলের সেক্রেটারি ওবায়দুল কাদেরও প্রতিদিনি একই ভাঙ্গা রেকর্ড প্রতিদিন বাজাচ্ছেন।

তবে মজার বিষয় হলো-প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় যে সরকারের কোনো ধরণের প্রস্তুতি নেই সেই সত্যটা বলে দিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

রোববার স্বাস্থ্য অধিদফতরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইন ব্রিফিংয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেছেন, পরিস্থিতি কোনদিকে যাচ্ছে তা আমরা আস্তে আস্তে জানতে পারছি। প্রতিদিন-প্রতি সপ্তাহে আমাদের নতুন নতুন অভিজ্ঞতা হচ্ছে। আমরা আসলে জানি না এই পরিস্থিতি কবে নাগাদ শেষ হবে। তবে এই সংক্রমণ অতিমাত্রায় ছড়িয়ে পড়লে আমাদের প্রস্তুতিতে তা মোকাবিলা করা অসম্ভব। তাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার যে কথা বলা হচ্ছে তা মেনে চলতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের এই বক্তব্য প্রমাণ করে, শেখ হাসিনা ও তার দলের নেতারা এতদিন করোনার আগাম প্রস্তুতির যে রেকর্ড বাজিয়ে আসছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভাওতাবাজি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকসহ সচেতন মানুষ মনে করছেন, করোনা মোকাবেলায় সরকারের প্রস্তুতি সম্পর্কে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক যে তথ্য দিয়েছেন সেটাই সঠিক। আবুল কালাম আজাদ শেখ হাসিনার আসল গোমর ফাঁস করে দিয়েছেন। করোনার বেশি প্রাদুর্ভাব ঘটলে বাংলাদেশ মৃত্যুপুরীতে পরিণত হবে। শেখ হাসিনার পক্ষে তা মোকাবেলা করা সম্ভব হবে না।

অ্যানালাইসিস বিডি