কক্সবাজার-২ আসনে আশেক উল্লাহ রফিককে শোকজ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনি আচরণ বিধি-বিধান লঙ্ঘন করায় সংসদীয় আসন ২৯৫, কক্সবাজার-২ (কুতুবদিয়া-মহেশখালী) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী আশেক উল্লাহ রফিক’কে শোকজ করা হয়েছে।

একই সংসদীয় আসনের দায়িত্ব প্রাপ্ত নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও কক্সবাজারের সিনিয়র সহকারী জজ সুশান্ত প্রসাদ চাকমা বৃহস্পতিবার  কারণ দর্শানোর এই নোটিশ (শোকজ নোটিশ) ইস্যু করেন।

কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের নাজির ও নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির সহায়ক স্টাফ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন সোহেল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা ২০০৮ এর ৬(ক), ১১(ক), ১১(গ) বিধিতে বর্ণিত বিধান এবং গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ১৯৭২ এর ৭৩(২বি), ৭৩(৩) অনুযায়ী নির্বাচন-পূর্ব নির্বাচনি আচরণ বিধি-বিধান ভঙ্গের দায়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী আশেক উল্লাহ রফিক এর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে কেন সুপারিশ করা হবে না, তা আগামী শনিবার (৬ জানুয়ারি) বিকেল ৪ টার মধ্যে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান তথা কক্সবাজারের সিনিয়র সহকারী জজ সুশান্ত প্রসাদ চাকমা এর কার্যালয়ে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে কিংবা উপযুক্ত কোন প্রতিনিধির মাধ্যমে লিখিতভাবে ব্যাখ্যা প্রদান করতে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ১৯৭২ এর ৯১এ অনুচ্ছেদের (৫)(এ) উপ-অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শোকজ নোটিশ প্রাপ্ত আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী আশেক উল্লাহ রফিক নৌকা প্রতীক নিয়ে এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন (বিএনএম) মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মোহাম্মদ শরীফ বাদশা নোঙর প্রতীক নিয়ে কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। আশেক উল্লাহ রফিক একই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য এবং পর পর তিনি বার এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

এ আসনে প্রার্থী ৬ জন। তাঁরা হলেন-আওয়ামীলীগের আশেক উল্লাহ রফিক : প্রতীক-নৌকা, বিএনএম এর মোহাম্মদ শরীফ বাদশা : প্রতীক-নোঙ্গর, এনপিপি’র মাহাবুবুল আলম : প্রতীক-আম, বাংলাদেশ সুপ্রীম পার্টির মোহাম্মদ খাইরুল আমিন : প্রতীক-একতারা, ইসলামী ফ্রন্টের মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান : প্রতীক-চেয়ার এবং ইসলামী ঐক্যজোটের মোহাম্মদ ইউনুস : প্রতীক-মিনার।

কক্সবাজার-২ আসনে মোট ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও আশেক উল্লাহ রফিক এবং শরীফ বাদশা’র মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা সীমাবদ্ধ রয়েছে।

কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনে মোট ভোটার ৩ লক্ষ ৪৮ হাজার ১২৭ জন। তারমধ্যে, পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৮৫ হাজার ২৫৪ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ৬২ হাজার ৮৭৩ জন। এ আসনে মোট ভোট কেন্দ্র ১১৮ টি। মোট বুথ সংখ্যা ৭৪০ টি। তারমধ্যে, পুরুষ বুথ ৩৪৯ টি। মহিলা বুথ ৩৯১ টি।

এরমধ্যে, মহেশখালী উপজেলায় মোট ভোটার ২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬০৪ জন। তারমধ্যে, পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৩৪ হাজার ৭৫৮ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ১৭ হাজার ৮৪৬ জন। এই উপজেলায় মোট ভোট কেন্দ্র ৮১ টি।

কুতুবদিয়া উপজেলায় মোট ভোটার ৯৫ হাজার ৫২৩ জন। তারমধ্যে, পুরুষ ভোটার ৫০ হাজার ৪৯৬ জন এবং মহিলা ভোটার ৪৫ হাজার ২৭ জন। এই উপজেলায় মোট ভোট কেন্দ্র ৩৭ টি।

আগামী রোববার ৭ জানুয়ারি সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে।