কক্সবাজারে ছাত্রলীগ নেতাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

কলাতলীর হোটেল ‘ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্ট’ লুটপাট ও শতাধিক ফ্ল্যাট দখলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। এ অভিযোগে সোমবার শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এছাড়া একই দিন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার কলাতলীর ‘ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্ট’-এর সিসি ক্যামেরা ভেঙে লুটপাট এবং শতাধিক ফ্ল্যাট দখলের অভিযোগে মামলা করা হয়।

এদিকে, মঙ্গলবার বিকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে ছাত্রলীগের দখলবাজির বিরুদ্ধে হোটেল মালিক ও কর্মচারীরা মানববন্ধন করেছেন। এ নিয়ে দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে। এতে যে কোনো সময় বড় ধরনের সংঘাত হতে পারে বলে আশঙ্কা সংশ্লিষ্টদের।

কক্সবাজার সদর মডেল থানায় ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্টের জেনারেল ম্যানেজার শেখ আবদুল­াহ বাদী হয়ে মামলা করেছেন। এতে ঢাকার বনানীর ৮নং সড়কের বাসিন্দা দেলোয়ার এইচ খানকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। অন্য আসামিরা হলেন -শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক মনির, শহর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মনির, ছাত্রলীগ নেতা আসাদুজ্জামান সায়েম, খাইরুল ইসলাম জিশান, রফিকুল ইসলাম, মেজর (অব.) দেলোয়ারের স্ত্রী ও যুবদল নেতাসহ ১০ জন। এতে অজ্ঞাতনামা ১৫-২০ জনকেও আসামি করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২১ এপ্রিল বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কক্সবাজারের ১২ নং ওয়ার্ডের কলাতলী ডলফিন মোড়ের ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্টের সিকিউরিটি ও ম্যানেজারকে মারধর করে নগদ অর্থ ছিনিয়ে নেয় আসামিরা। শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক মনিরের নির্দেশে ছাত্রলীগ নেতা সায়েম ফ্রন্ট ডেস্কের ক্যাশের ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা ও দুটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এছাড়া অন্য এক আসামি ক্যাশ ড্রয়ার থেকে হোটেলের স্টাফদের বেতন-বোনাসের ৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় বিভিন্ন জিনিস ভাঙচুর করা হয়। মারধর করে স্টাফদের বের করে দিয়ে হোটেল দখলে নেয় আসামিরা।

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্টের দখল নিতে গিয়ে চুরি, ক্ষতিসাধন ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতার করতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্টের মালিক হাজি দেলোয়ার জানান, ২০১৮ সালে মেজর (অব.) দেলোয়ার হোসেন খানকে চুক্তির মাধ্যমে ২০০ ফ্ল্যাট ভাড়া দিই। চুক্তির পর কয়েক মাস ভাড়া ও ভ্যাট পরিশোধ করলেও কিছুদিন পর তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। নিয়মিত ভাড়া পরিশোধ না করায় তিন কোটি টাকার ওপরে ভাড়া ও ভ্যাটের টাকা বকেয়া পড়ে। চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করায় মামলা করি এবং ফ্ল্যাট বুঝে নেই। তিনি আরও জানান, মামলার পর দেলোয়ার, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, তার সহযোগী, যুবদল নেতা ও বিভিন্ন মামলার আসামিদের দিয়ে ফ্ল্যাট দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এ বিষয়ে মেজর (অব.) দেলোয়ার বলেন, ২০২৮ সাল পর্যন্ত ফ্ল্যাটের মালিক থাকব। আমার কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র রয়েছে। এ ছাড়া তিনি ও তার স্ত্রীর ওপরে হামলা করা হয়েছে।

সোমবার রাতে ওয়ার্ল্ড বিচ রিসোর্টের কফি শপের মালিক মো. ইসমাইল সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এতে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান, ধর্ষণ মামলার আসামি আশিক, একাধিক মামলার আসামি সোহাগসহ ৯ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েক দিন ধরে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলেন অভিযুক্তরা। ২১ এপ্রিল মারুফ আদনানসহ ২০-৩০ সন্ত্রাসী কফি শপে ঢুকে মারধর, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় এবং কফি শপ দখলে নেয়। এ সময় ড্রয়ারে থাকা নগদ ২ লাখ ৩০ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এ ছাড়া ১০-১২ লাখ টাকার মালামাল ক্ষতি করা হয়। কফি শপের মালিক ইসমাইলের দাবি -দখল ও ভাঙচুরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও শহরের একাধিক চিহ্নিত আসামি নেতৃত্ব দিলেও পুলিশ মামলা নিচ্ছে না। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু মারুফ আদনান বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমি জড়িত নই। এরপরও যে বা যারা আমার নামে অপপ্রচার করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

সুত্র; যুগান্তর

পূর্বের খবরতিন দফা বাড়িয়েছে সরকার, আইএমএফের শর্ত পূরণে আবারও বাড়ছে বিদ্যুতের দাম
পরবর্তি খবরচরপাথরঘাটার চেয়ারম্যান পুত্রের খুলশী ফ্ল্যাট থেকে গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার